জগন্নাথপুরে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বেড়িবাধ নির্মাণে পিআইসি কমিটির অপারগতা ॥ কাজ করতে বিকল্প ব্যবস্থা

মো.শাহজাহান মিয়া :
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে নলুয়ার হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাধের ৪টি ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে কাজ করতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন কাজ পাওয়া পিআইসি কমিটির নেতৃবৃন্দ। যে কারণে এসব স্থানে কাজ করতে বিকল্প ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
জানাযায়, এবার জগন্নাথপুর উপজেলার নলুয়ার হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাধের বেতাউকা থেকে গাদিয়ালা পর্যন্ত ১৬, ১৭, ১৮ ও ১৯ নং পিআইসি এলাকা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ ও দুরত্ব হওয়ায় সংশ্লিষ্ট পিআইসি কমিটির নেতৃবৃন্দ কাজ করতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তবে যথা সময়ে কাজ সম্পন্ন করার স্বার্থে বিকল্প ব্যবস্থা নিয়েছেন চিলাউড়া-হলদিপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আরশ মিয়া। তিনি এসব ঝুঁিকপূর্ণ স্থানে কাজ করতে নতুন করে দায়িত্ব দিয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য জুয়েল মিয়াকে।

২ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার কাজ করতে অপারগতা প্রকাশ করে পিআইসি কমিটির সভাপতি আরেক ইউপি সদস্য সুলতান আহমদ বলেন, বাধের এসব অংশ খুবই ঝুঁকিপূর্ণ ও দুরত্ব হওয়ায় আমি স্বেচ্ছায় ছেড়ে দিয়েছি। এখানে কাজ করতে আমি আগ্রহী নই বরং ছেড়ে দিয়ে রক্ষা পেয়েছি।
চিলাউড়া-হলদিপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আরশ মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এসব স্থান খুবই ঝুঁকিপূর্ণ ও দুরত্ব হওয়ায় যাঁরা কাজ পেয়ে ছিলেন তাঁরা এখন কাজ করতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। যে কারণে শুধু মাত্র যথা সময়ে কাজ সম্পন্ন করার স্বার্থে স্থানীয় ইউপি সদস্য জুয়েল মিয়াকে দায়িত্ব দিয়েছি। বর্তমানে জুয়েল মিয়ার নেতৃত্বে এসব স্থানে কাজ করা হবে। আশা করছি যথা সময়ের আগেই মান সম্পন্ন কাজ হবে। এ নিয়ে আর কোন শঙ্কা নেই। এ সময় ইউপি সদস্য টাকন মিয়া, সুলতান আহমদ, জুয়েল মিয়া ও নারী ইউপি সদস্য সাকিরুন বেগম উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে-বর্তমানে কাজের দায়িত্ব পাওয়া ইউপি সদস্য জুয়েল মিয়া বলেন, আমার বাড়ির পাশে এসব কাজ হওয়ায় আমাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আমি স্থানীয়দের সাথে নিয়ে যথা সময়ের মধ্যেই কাজ শেষ করতে চাই।
Theme images by johnwoodcock. Powered by Blogger.